নিউটাউনে দুর্ঘটনায় আহতের উপযুক্ত চিকিৎসার অভাবে মৃত্যু, ক্ষোভ

নিউটাউনে দুর্ঘটনায় আহতের উপযুক্ত চিকিৎসার অভাবে মৃত্যু, ক্ষোভ

পি, এম.নিউজ ৩৬৫ ডিজিটাল ডেস্ক:গতকাল দক্ষিণ ২৪ পরগনার কে.এল.সি থানার হাতিশালা সিক্সলেন নিকস্ত আর্ট কলেজের সম্মুখে এক মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে। সূত্রের খবর একটি স্কোরপিও হাতিশালার দিক থেকে সিক্সলেন হয়ে নিউটাউনের দিকে যাচ্ছিল। আর্ট কলেজের সামনে একটা আইটি বিল্ডিং নির্মাণের কাজ চলছে। সেখানে প্রতিদিন সহস্রাধিক নির্মাণ কর্মীরা কাজ করে।
দিনের কাজ শেষ করে বিকেল ৫টায় কর্মচারীরা বাড়ির দিকে রওনা দিচ্ছিলেন। তাদের মধ্যে একজন নারায়ণ পুরের বাসিন্দা গণেশ চক্রবর্তী সাইকেল নিয়ে বড় রাস্তায় ওঠা মাত্রই অনিয়ন্ত্রীত গতির স্কোরপিওটি গনশকে ধাক্কা মারে। আহত গণেশ রাস্তায় রক্তাক্ত হয়ে ছটফট করতে থাকে। এই অবস্থা দেখেও স্কোরপিওটি ঘটনাস্থল থেকে পাঁচ যাত্রীসহ পালিয়ে যায়। ততক্ষনে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। পরে নির্মাণ কর্নেমীরা তাকে নিয়ে জিরানগাছা ব্লক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যায়। সেখানেই তাঁর মৃত্যু হয়।

ঘটনাস্থলে কেল.সি থানার পুলিশ উপস্থিত হয়। রাস্তার উপরের রক্ত পুলিশ দ্রুত পরিষ্কার করেন। পুলিশকে দুর্ঘটনার বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে কোনো কিছু বলতে রাজি হননি।

স্থানীয় মানুষের অভিযোগ এখানে এক হাজারের অধিক কর্মচারীরা কাজ করেন, সামনে রয়েছেন আর্ট কলেজ। তার পরেও এখানে কোনো ট্রাফিক থাকে না এবং কোনো সিগন্যালের ব্যবস্থা নেই। যার কারণে প্রায়ই এখানে দুর্ঘটনা ঘটে। প্রশাসনের কোন হেলদোল নেই। প্রশাসন কেন সজাগ হয় না, তা নিয়ে রীতিমত ক্ষুব্ধ সাধারণ মানুষ।

জিরানগাছা হাসপাতালের ডাক্তার বাবুদের মৃত ব্যক্তি সম্পর্কে জানতে চাইলে তাঁরা অফ ক্যামেরায় বলেন যে রোগী বেঁচে ছিল, কিন্তু আমাদের এখানে প্রাথমিক চিকিৎসা করার পর আমরা ইমার্জেন্সি রেফার করেছি , কিন্তু তারা তাঁকে কেউ নিয়ে যায়নি। তার সঙ্গে থাকা সহকর্মীদের জিজ্ঞাসা করা হলে তাঁরা বলেন , কোনো এম্বুলেন্স পাওয়া যায়নি তাই দ্রুত কোলকাতায় নিয়ে যেতে পারিনি। ভাঙ্গড়- ২ নম্বর ব্লকের ব্লক হাসপাতাল। বলাযায় ব্লকের সবচেয়ে বড় স্বাস্থ্য কেন্দ্রে কেন পর্যাপ্ত ম্বুলেন্স পাওয়া যায় না,? তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। এমনই ব্লকের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা নিয়ে সাধারণ মানুষের যথেষ্ট ক্ষোভ রয়েছে।