দক্ষিণবঙ্গে বাঙালিদের দ্বারা প্রথম তৈরি হলো ভাঙড়ের শাহীন বাগ

দক্ষিণবঙ্গে বাঙালিদের দ্বারা প্রথম তৈরি হলো ভাঙড়ের শাহীন বাগ

সাকিরুল ইসলাম,পিএম নিউজ ৩৬৫,ভাঙড়: দক্ষিণবঙ্গে বাঙালিদের ঐকবদ্ধ আন্দোলনের নতুন রুপ ভাঙড়। গত ১ লা মার্চ ভাঙড়ের কতিপয় যুবক তৈরি করলো “ভাঙড় শাহীন বাগ”।দেখতে দেখতে পাঁচ দিন‌ পেরিয়ে আজ ষষ্ঠ দিনে পদার্পণ করলো।

দেশ জুড়ে এন.আর.সি, সি.এ.এ ও এন.পি.আরের বিরুদ্ধে গর্জে উঠেছে গণ আন্দোলন ও রাষ্ট্রীয় আন্দোলন। বিশেষ করে দিল্লি শাহীনবাগের মহিলাদের শান্তিপূর্ণ অবস্থান বিক্ষোভ দেশ জুড়ে এক নতুন বিপ্লব সৃষ্টি করেছে। দিল্লি শাহীনবাগের অনুকরণে দেশ জুড়ে প্রায় শতাধিক শাহীনবাগ তৈরি হয়েছে। শুধু কলকাতার বুকে গড়ে উঠেছে ৬ টি শাহীন বাগ।তবে সব বিহারী ও উর্দু ভাষাভাষী মানুষদের দ্বারায় তৈরি হয়েছে সেই সব গণ আন্দোলন।তবে এবার কলকাতা ছাড়িয়ে দক্ষিণবঙ্গের বাঙালিদের হাত ধরে গড়ে উঠেছে এক নতুন বিপ্লব।

দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার ভাঙড়ের এক প্রত্যন্ত গ্রাম সাতুলিয়াতে সংগঠিত মানুষের প্রতিবাদ গর্জে উঠেছে। যা আজ ‘ভাঙড় শাহীনবাগ’ নামে পরিচিতি হয়ে গেছে।ভাঙড়ের সাতুলিয়া বাজারে এলাকার যুবকরা এন.আর.সি, সি.এ.এ ও এন.পি.আরের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে সম্মিলিত ভাবে দিল্লি শাহীনবাগের অনুকরণে ‘ভাঙড় শাহীনবাগ’ গড়ে তুলেছে।এই আন্দোলন প্রতিদিন বৈকাল ৫ থেকে রাত্রে ৯ টা পর্যন্ত অনির্দিষ্টকালের জন্য চলবে বলে আন্দোলনকারীরা জানিয়েছে।

আবু জাফর নামে এক আন্দোলন কারী বলেন, ‘আমরা যে যুগসন্ধিক্ষণে আছি সেটা খুবই লাজুক পরিস্থিতিতে যাচ্ছে, বর্তমানে ভারতবর্ষ ফ্যাসিস্টদের হাতে চলে গেছে এবং তারা তাদের মনোবাসনা পূর্ণ করার জন্য সিএনএন ভারতবর্ষে লাগু করতে চাইছে তার বিরুদ্ধে ভারতের আপামর জনতা রাস্তায় নেমে এসেছে। আমরা ও সেই পথ বেছে নিয়েছি।
শিক্ষক নাজির হোসেন এই আন্দোলনের সমর্থন জানিয়ে বলেন, ‘অসাংবিধানিক CAA দেশের মানুষের জন্য ভয়ঙ্কর,এটা অবশ্যই বন্ধ হওয়া উচিত।আমি এই আন্দোলনকারীদের পাশে আছি।’