“অমানবিক প্রতিবাদ” ডাক্তারদের আন্দোলন ও রোগীদের মৃত্যু মিছিল নিয়ে অসাধারণ কবিতা

“অমানবিক প্রতিবাদ”
কারিমুল ইসলাম

মরছে শিশু, মরছে মা, মরছে আমার বোন।
অবাক হৃদয় জিগাই মোরে, আর কতক্ষণ?
এ কেমন প্রতিবাদ? মানুষ মরে দিনরাত!!
রাস্তা আর হসপিটালে রোগী করে ছটফট।

যে দেবতাদের মোরা দেখিছি সদা, সেবিতে নরে,
আজ সে কোন আদিম ক্রোধে মানুষ মারে।
অন্যায় হয়েছে, নিষ্ঠুর প্রহর, বলছে সভ্য সমাজ
তাই বলে অসুস্থ গরীব মরিবে! না পেয়ে এলাজ।

যারা ধনী, তারা নই চিন্তিত, নাই কোনো কষ্ট
টাকার বান্ডিলে ‘সেবা হোমে’ তারা স্বাগত।
চিন্তায় ভাঁজ পড়ে গরীবের কপালে,ভগ্ন কায়া যায় কুঁকড়ে
হাজারো মানুষ দাড়িয়ে, বন্ধ হাসপাতালের দ্বারে ।

তবুও বসে ধর্ণায়, একের ভুলের শাস্তি সবারে দিলে,
দেবতার আসন ছেড়ে নিষ্ঠুর অতি হলে।
ক্যান্সারের শিশুরা অবাক নয়নে তাকায় …
চিকিৎসা না পেয়ে তারা বাড়ি ফিরে যায়।

ওই ফুলের ন্যায় শিশুগুলির বাঁচার লড়াই!
ওরা কোন অপরাধে সাজা পেলো ভাই?
বাবা কাঁদে, ভাই কাঁদে,জানায় করজোড়ে করুণ আর্তি
“ভাইকে মোর করো চিকিৎসা, দেখ কষ্ট পাচ্ছে অতি “

তোমরা তবুও অনড়, সমনে কাতরায় কত শত রোগী।
রাজনীতির নীতির তরজায় সব অসহায় ভুক্তভোগী।
ব্যথিত মনের দাবি, ফিরে এসো কাজে মানুষের তরে,
চেয়ে দেখ বিনা চিকিৎসায় কত অসহায় মরে।।