করোনাভাইরাস: রাজপরিবারে খুশির হাওয়া,সেল্ফ-আইসোলেশন থেকে মুক্তি পেলেন প্রিন্স চার্লস

করোনাভাইরাস: রাজপরিবারে খুশির হাওয়া,সেল্ফ-আইসোলেশন থেকে মুক্তি পেলেন প্রিন্স চার্লস

আন্তর্জাতিক,
নিজস্ব প্রতিবেদন
পি এম নিউজ ৩৬৫, মার্চ ৩১, ২০২০, মঙ্গলবার

 

করোনাভাইরাস সংক্রমণ নির্ণয়ের পরে প্রিন্স অফ ওয়েলস এই প্রথম সেল্ফ-আইসোলেশনের বাইরে এলেন।

টেস্ট রিপোর্টে করোনা পজিটিভ ধরা পরার পর থেকে ৭২ বছর বয়সী প্রিন্স চার্লস স্কটল্যান্ডে টানা সাতদিন সেল্ফ-আইসোলেশনে কাটিয়েছেন।

অন্যদিকে, ৭২ বছর বয়সী ডাচেস অব কর্নওয়ালকেও পরীক্ষা করা হয়েছিল এবং দেহে অবশ্য ভাইরাসের কোনো লক্ষ্মণ মেলে, তবে সপ্তাহের শেষ অবধি তিনি নিজেকে আলাদা করে রাখবেন।

বাকিংহাম প্যালেসের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, রাজপুত্রের সুস্বাস্থ্য রয়েছে এবং তিনি সরকারের বিধিনিষেধ অনুসরণ করছেন।

অপর এক মুখপাত্র বলেন, “ক্লারেন্স হাউস আজ নিশ্চিত করেছে যে তার চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ করে প্রিন্স অফ ওয়েলস এখন সেল্ফ-আইসোলেশনের বাইরে রয়েছেন।”

স্কটল্যান্ডের ডিউক অব রথেসি খ্যাত প্রিন্স চার্লস রাজকীয় বালমোরাল এস্টেটে তাঁর বার্কহলের বাড়িতে সাত দিনের কোয়ারান্টাইনে কাটিয়েছেন।

সরকারী নির্দেশিকাগুলি অনুসারে, ভাইরাসটির লক্ষণগুলির সাথে যে জড়িত যে কারও সাত দিনের জন্য নিজেকে বিচ্ছিন্ন রাখা উচিত, অপরদিকে তাদের পরিবারের প্রত্যেককের থেকে দুই সপ্তাহের জন্য নিজেকে বিচ্ছিন্ন রাখা বাঞ্ছনীয়।

বাকিংহাম প্যালেস এর আগে জানিয়েছিল যে, রানী সর্বশেষ ১২ মার্চ তাঁর সিংহাসনের উত্তরাধিকারী পুত্রকে দেখেছিলেন সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হিসেবেই।

গত রবিবার অবধি যুক্তরাজ্যে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া মোট মানুষের সংখ্যা ১,৪০৮ জনে পৌঁছেছে, ইংল্যান্ডে আরও ১৫৯ জন, স্কটল্যান্ডে ছয়জন, ওয়েলসে ১৪ জন এবং উত্তর আয়ারল্যান্ডে একজন।

ব্রিটেনের এনএইচএস স্যার সাইমন স্টিভেনস জানিয়েছেন, যুক্তরাজ্যে করোনাভাইরাস পজিটিভ ৯,০০০ এবং তারা চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে।

ইতিমধ্যে মৃতদের তালিকায় রয়েছেন বার্টন কুইন্স হসপিটালের কান, নাক এবং গলা পরামর্শক পঞ্চান্ন বছর বয়সী অ্যামেজড এল-হাওরানী। গত সপ্তাহে, একজন অর্গান ট্রান্সপ্লান্ট কন্সাল্ট্যান্টের করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে ও তিনিও মারা যান।

এদিকে, পররাষ্ট্রসচিব ডোমিনিক রাব যুক্তরাজ্যের প্রধান বৈজ্ঞানিক উপদেষ্টা স্যার প্যাট্রিক ভাল্যান্সের সাথে বিএসটি-র ডাউনিং স্ট্রিটের দৈনিক সংবাদ সম্মেলনে নেতৃত্ব দেবেন বলে আশা করা হচ্ছে, অন্যদিকে, সরকার বিদেশে আটকা পড়া ব্রিটেনদের সহায়তার ঘোষণা করবে বলে জল্পনা করা হচ্ছে।

আশার আলো ;

এই পরিসংখ্যানগুলিতে মৃদু আশার আভাস মিলবে যদি সাম্প্রতিক মৃত্যুর হার এক তৃতীয়াংশের মধ্যে থাকে, তা নাহলে গত রবিবার ৩৫০ জন এবং গতকাল ৪৫০ জন নতুন ব্যক্তি মৃত্যুর মুখোমুখি হতে পারে।

সর্বশেষ আপডেটগুলো এখানে রয়েছে।