মসজিদের মিনার ভাঙ্গার অভিযোগ চীনের বিরুদ্ধে আরবি ভাষার পরিবর্তে মন্দানির ভাষার ব্যবহার ক্ষোভে ফুঁসছে গোটা বিশ্বের মুসলিম সমাজ

পিএম নিউজ ডেস্ক:ঐতিহাসিক মসজিদের মিনার ভেঙে নয়া বিতর্কে চিন. মিং আমলের ওই মসজিদের ভোলও বদলানো হয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই ক্ষুব্ধ চিন তো বটেই, বিশ্বের মুসলিম সমাজের একটা বড় অংশও।

নিংজিয়া হুই অটোনোমাস রিজিয়নের রাজধানী ইনচুয়ান শহরে রয়েছে নানগুয়ান মসজিদ। এই অঞ্চলটি হুই মুসলিম সম্প্রদায় অধ্যুষিত. স্থানীয় মুসলিমরা এখানে নামাজ পড়েন। 1368 থেকে 1644 সাল পর্যন্ত এখানে রাজত্ব করতেন মিং রাজবংশ। নানগুয়ান মসজিদটি ওই রাজাদের আমলে তৈরি। মসজিদে ছিল একাধিক সোনালী মিনার. ছিল চোখ ধাঁধানো সোনালী একটি গম্বুজও। মসজিদের গায়ে আরবি ভাষায় খোদাই করা ছিল বাণী।
ইসলামী স্থাপত্যের উল্লেখযোগ্য নিদর্শন ছিল এই মসজিদ।
সম্প্রতি শহর পরিদর্শনে আসেন চিনা প্রেসিডেন্ট শি জিন পিং। শহর সাজানো না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি। প্রেসিডেন্ট চলে আসার পরেই শুরু হয়ে যায় শহর সাজানোর কাজ. তারপরেই ভোল বদলে যায় মসজিদের. ভেঙে ফেলা হয় মিনার. মান্দারিন ভাষায় লেখা হয় বাণী। ক্ষোভে ফুঁসছেন মুসলিমরা.