নেপালে মোবাইল চুরির অভিযোগে গ্রেফতারের মথুরাপুরের ১৪ জন যুবক, সিপিআইএমের সাহায্যে মুক্তি পেলো সবাই

পিএম নিউজ, ডিজিটাল ডেস্ক: অবশেষে আদালত থেকে জামিন পেল নেপালে ধৃত মথুরাপুরের ১৪ জন বাসিন্দা। সোমবার ধৃত ১৭ জনের মধ্যে ১৪ জনের জামিন মঞ্জুর করেছে আদালত। নেপালের গোর্খা জেলা আদালতের বিচারক ১৪ জনের জামিন মঞ্জুর করেন বলে জানাগেছে। বাকি ৩ জনের বিরুদ্ধে তদন্ত করার নির্দেশ দেন তিনি। দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার মথুরাপুরের বাসিন্দা ১৭ জন নেপালে গ্রেপ্তার হয়। বাড়িওয়ালার দায়ের করা অভিযোগে সেখানে তাদের পুলিশ গ্রেপ্তার করে। নেপালে গ্রামে গ্রামে ঘুরে মুরগির ছানা বিক্রি করে ওই দলটি। তাদের বিরুদ্ধে মোবাইল চুরির অভিযোগে গোর্খা থানার পুলিশ ৭ আগস্ট গ্রেপ্তার করে।
সোমবার সিপিআই(এম) নেতা কান্তি গাঙ্গুলি জানান, ধৃত ১৭ জনের মধ্যে আদালত ১৪ জনকে জামিন দিয়েছে। বাকি ৩ জনের বিরুদ্ধে তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক। এদিন ধৃতদের জামিনের জন্য আদালতে সওয়াল করেন আইনজীবী।

কান্তি গাঙ্গুলি জানান, ধৃতদের জামিনের বিষয়ে তিনি গোর্খা জেলার জেলা শাসকের সঙ্গে দেখা করেন। এছাড়াও নেপালের প্রাক্তন প্রধান মন্ত্রী মাধব কুমার নেপালের সঙ্গে বৈঠক করে তাঁকে বিষয়টি সম্পর্কে অবহিত করেন। নেপালের কমিউনিস্ট পার্টি ও প্রশাসন সর্বতোভাবে সহায়তা করায় ধৃতদের ১৪ জনের জামিন মঞ্জুর করে আদালত।

মথুরাপুরের বাসিন্দা ১৭ জন গরিব মানুষ ব্যবসা করতে গিয়ে নেপালের গোর্খা থানায় বন্দি থাকার ঘটনার খবর পেয়ে সিপিআই(এম) দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা সম্পাদক শমীক লাহিড়ী পার্টির রাজ্য সম্পাদক সূর্য মিশ্রকে অবহিত করেন। এরপর সূর্য মিশ্র ধৃতদের জামিনের বিষয়ে সিপিআই(এম) সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরিকে ঘটনার কথা জানান। সীতারাম ইয়েচুরি এবিষয়ে হস্তক্ষেপ করে পার্টির কেন্দ্রীয় সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য যোগীন্দ্র শর্মাকে নেপালের পার্টির সঙ্গে যোগাযোগ করার দায়িত্ব দেন। যোগীন্দ্র শর্মা যোগাযোগ করে তাঁদের পূর্ণ সহযোগিতার আশ্বাস পাওয়ায় পার্টির নির্দেশে সিপিআই(এম) নেতা কান্তি গাঙ্গুলি নেপালে যান। সোমবার রাতে বিমানে তিনি কলকাতায় ফিরে আসবেন বলে সংবাদ মাধ্যমকে তিনি জানান।