উন্নত চিকিৎসাব্যবস্থা সত্ত্বেও নিউ ইয়র্কে করোনার সংক্রমণ এত মারাত্মক কেন?

উন্নত চিকিৎসাব্যবস্থা সত্ত্বেও নিউ ইয়র্কে করোনার সংক্রমণ এত মারাত্মক কেন?

আন্তর্জাতিক,
নিজস্ব প্রতিবেদন,
পি এম নিউজ ৩৬৫, ৩১ মার্চ, ২০২০, মঙ্গলবার

যুক্তরাষ্ট্রের এত উন্নত চিকিৎসাব্যবস্থা, সেখানে কেন করোনায় এত মৃত্যু?

বলা যেতে পারে, এটি একপ্রকার অনিবার্যই ছিল যে নিউ ইয়র্ক সিটি এবং তার তৎসংলগ্ন এলাকাটি যুক্তরাষ্ট্রের করোনাভাইরাস মহামারীর একটি উপকেন্দ্র হয়ে উঠবে। অত্যধিক জনঘনত্ব, জনসাধারণের অবাধ পরিবহন এবং পর্যটকদের নিরন্তর আনাগোনা মহানগরটিকে ভাইরাসের লক্ষ্যবস্তুতে রূপান্তরিত করেছে।

অপরদিকে ভাইরাস সংক্রমণ রোধ করতে, বিজ্ঞনীদের সক্রিয়তায় ঘাটতি আছে কি-না তা খতিয়ে দেখতে হবে।

অবশ্য মিশিগান বিশ্ববিদ্যালয়ের এপিডেমিওলজি এবং গ্লোবাল হেলথের অধ্যাপক ড। আর্নল্ড মন্টো বলেছেন, “আমাদের কাছে প্রকৃত সংক্রমণ সংখ্যার চেয়ে গুজব বেশি ছড়িয়েছে।”

নিউ ইয়র্ক সিটির প্রায় ৩০,০০০ এরও বেশি বাসিন্দা এখনও পর্যন্ত করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছে যা কিনা সারাবিশ্বের মোট সংক্রমণের প্রায় এক তৃতীয়াংশ। নিউইয়র্ক এবং এর আশেপাশের অঞ্চলে ভাইরাসের বিস্তার দেশের অন্য যেকোনো এলাকার থেকে অনেক বেশি।

পেনিসিলভেনিয়া বিশ্ববিদ্যালয় এবং ফিলাডেলফিয়ার শিশু হাসপাতালের সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ পল অফিট বলেন, ‘অন্যান্য ভাইরাসঘটিত রোগের সাথে করোনা সংক্রমণ অনেকটাই ভিন্ন, বিজ্ঞানীরা বিভিন্ন নমুনা থেকে ভাইরাসের মিউটেশন তুলনা করে সঠিক সময় সম্পর্কে অনুধাবন করতে পারেন। কিন্তু করোনাভাইরাস মানবদেহে আশ্চর্যজনকভাবে স্থিতিশীল! ”

মহামারীবিদরা বলেন, নিউ ইয়র্কের সংক্রমণ এত দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার কারণ এর অত্যধিক জনঘনত্ব। উচ্চঘনবসতি,ফুটপাতের নিয়মিত ভিড়, সাবওয়েজ জ্যাম সংক্রমণের কারণ। শহরটিতে প্রতি বর্গমাইলে ২৭,০০০ বাসিন্দা বসবাস করেন যা দ্বিতীয় জনঘনত্ব পূর্ণ শহর সানফ্রান্সিসকোকে ছাড়িয়ে গেছে।

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সংক্রমণ ঠেকাতে দেশজুড়ে লকডাউনের সময়সীমা এপ্রিলের শেষ পর্যন্ত বর্ধিত করেছেন।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে করোনোভাইরাস থেকে এখনো পর্যন্ত প্রায় ১,৪০০০ জনের সংক্রমণ হয়েছে যা বিশ্বের অন্য কোনও দেশের তুলনায় বেশি এবং ২,৪০০ জনেরও বেশি মানুষ এই প্যাথোজেনটির কারণে মারা গেছে।

বিশ্বব্যাপী, করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৭,১৮,০০০ এরও বেশি পৌঁছেছে। প্রায় ১,৪৯,০০০ মানুষ সুস্থ হয়ে উঠেছে এবং ৩৩,০০০ এরও বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন।

এখানে সর্বশেষ আপডেটগুলি রয়েছে: