তাবরেজের জন্য আইনি সহায়তা দেবেন হর্ষ মান্দার

 

পিএম নিউজ ডেস্ক: ঝাড়খন্ডে গেরুয়াবাহিনীর হাতে মুসলিম যুবক তাবরেজ আনসারির নৃশংস হত্যার ঘটনায় দেশজুড়ে নিন্দা ও বিক্ষোভ সমাবেশের মধ্য হাইকোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা বিষয়টিকে অন্য মাত্রায় পৌঁছে দিল। ঝাড়খন্ড হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলাটি করেছেন প্রখ্যাত সমাজকর্মী হর্ষ মান্দার। হর্ষ মান্দার হাইকোর্টকে অনুরোধ করেছেন,মবলিঞ্চিং নিয়ে ২০১৮ সালের সুপ্রিম কোর্টের গাইডলাইন বাস্তবায়িত করুক হাইকোর্ট। ঝাড়খন্ড সরকারকে নির্দেশ দিক আইন অনুযায়ী গণনিগ্রহ ও সহিংসায় আক্রান্তদের ক্ষতিপূরণ স্কিম ঘোষণার জন্য। এছাড়া রাজ্য সরকারকে নির্দেশ দিক যেন ছয় মাসের মধ্যে গননিগ্রহ মামলার নিষ্পত্তি হয়।

প্রতিটি জেলায় এর জন্য আলাদা কোর্ট গঠন ও দৈনন্দিন শুনানির মাধ্যমে দ্রুত এই মামলা শেষ করার ব্যবস্থা নিক সরকার। সুপ্রিম কোর্টের গাইডলাইন রয়েছে এই ধরণের ঘটনা প্রতিহত করার জন্য। আবেদনে বলা হয়েছে,ঝাড়খন্ড পুলিশের পক্ষ থেকে সংবাদমাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে জানিয়ে দেওয়া হোক যে,মবলিঞ্চিং বা গণনিগ্রহের পরিণতি ভয়ানক হতে পারে এবং সরকার কঠোর ব্যবস্থা নিতে পারে অপরাধীদের বিরুদ্ধে। এই মর্মে টিভি, রেডিও, সংবাদ মাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করুক সরকার। উল্লেখ্য ২০১৮ সালের ১৭ জুলাই সুপ্রিম কোর্ট মবলিঞ্চিং নিয়ে রায় দিয়েছিল যে রাজ্য সরকার প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা হিসেবে যেন নির্দিষ্ট কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করে। ঝাড়খন্ডেই মবলিঞ্চিং-এর ঘটনা বেশি ঘটছে বলে আবেদনে জানানো হয়। আবেদনে তাবরেজ আনসারির সঙ্গে পুলিশের ব্যবহার নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে। গুরুতর আহতকে হাসপাতালে না পাঠিয়ে থানায় ধরে নিয়ে যায় পুলিশ। তারপর কোর্টে চালান করে। আদালতও জেলে পাঠায় হাসপাতালের পরিবর্তে। এইসব বিষয়ও হাইকোর্টের আবেদনে তুলে ধরা হয়েছে।