বাংলাতে বিরোধীরা একজোট হলেও দুই-তৃতীয়াংশ আসনে জয়লাভ করবে বিজেপি – অমিত শাহ

নিউজ ডেস্ক : আগামী বিধানসভাতে বিজেপির বাংলা জয় সময়ের অপেক্ষা বলে ঘোষনা  স্বরাস্ট্রমন্ত্রী ও বিজেপির সভাপতি অমিত শাহের।  ২৯৪টি বিধানসভা আসনের দুই তৃতীয়াংশ, অর্থাৎ ১৯৬টি আসন জয়ের দাবি করে অমিত শাহ আজ এ কথাও বলেন, তৃণমূলের সঙ্গে অন্য বিরোধী দলগুলি হাত মেলালেও জিতবে বিজেপি। দু’সপ্তাহ আগে অমিত শাহ বলেছিলেন, একুশের বিধানসভা ভোটে পশ্চিমবঙ্গে ‘প্রচণ্ড’ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে আসতে চলেছে বিজেপি। সেই দাবিকে আরও নির্দিষ্ট করে আজ বিজেপি সভাপতির দাবি, পশ্চিমবঙ্গে দুই-তৃতীয়াংশ আসনে জিতে আসবে বিজেপি। শাহ বলেন, ‘‘পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা ভোটে আমরা দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে সরকার গড়তে চলেছি। বিজেপি সরকার তৈরি হওয়া সুনিশ্চিত। পশ্চিমবঙ্গের জনতা তৃণমূলের শাসনে বিরক্ত হয়ে উঠেছে।’’

গত এক বছরে বিজেপি পাঁচটি রাজ্যে গদি খুইয়েছে। হরিয়ানাতেও একার জোরে সংখ্যাগরিষ্ঠতা মেলেনি। গোড়াতেই দায় নিজের কাঁধে নিয়ে অমিত শাহ আজ বলেছেন, ‘‘বিজেপি সভাপতি হিসাবে জয়ের কৃতিত্ব যদি আমার হয়, তা হলে ঝাড়খণ্ডে পরাজয়ের দায়ও আমার।’’ তবে পশ্চিমবঙ্গে তাঁর ভবিষ্যদ্বাণী মিলবে বলে দাবি করে অমিত শাহ বলেন, ‘‘আমি তো এটাও বলেছিলাম পশ্চিমবঙ্গে লোকসভায় ২২টি আসন পাব। এসেছে ১৮টি। বলেছিলাম লোকসভায় ৩০০ আসন পাব। ত্রিপুরায় বাম শাসন উৎখাত হবে। অসমে বিজেপি সরকার গড়বে। মিলেছে তো সবই!’’

অনেক দিন ধরেই শোনা যাচ্ছে, পশ্চিমবঙ্গে কাজের সুবিধার জন্য অমিত শাহ বাংলা শিখছেন। এ বিষয়ে বিজেপি সভাপতি বলেন, ‘‘আমি সব ভাষাকেই ভালবাসি। অনেক ভাষার প্রতিই আমার আগ্রহ রয়েছে।’’ কতটা বাংলা শিখলেন, এই প্রশ্নের উত্তর অবশ্য শাহ এড়িয়ে গিয়েছেন ‘ব্যক্তিগত বিষয়’ বলে। ২০১৪-য় কেন্দ্রে মোদী সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকেই বিজেপি পশ্চিমবঙ্গকে পাখির চোখ করেছে। তা সত্ত্বেও ২০১৬-য় বিধানসভা ভোটে জিতে তৃণমূল ক্ষমতায় ফিরেছে। লোকসভায় ধাক্কা খেলেও এনআরসি-র বিরুদ্ধে ক্ষোভের সুবাদে উপনির্বাচনেও বিজেপিকে ধাক্কা দিয়েছে তৃণমূল। শাহের অবশ্য দাবি, বিজেপি ক্ষমতায় আসবে। মুখ্যমন্ত্রী কে হবেন, তা নিয়ে তাঁর জবাব, ‘‘মুখ চলে আসবে!’’