একটাও প্রতুশ্রুতি পালন করেনি,মোদী-শাহর বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা দায়ের

পিএম নিউজ ৩৬৫: ২০১৪ সালের লোকসভা ভোটে বিজেপির নির্বাচনী প্রচার ছিল আপাদমস্তক একটি প্রতিশ্রুতির পাহাড়। দেশের কালো টাকা ফেরত, আম জনতার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ১৫ লক্ষ টাকা জমা করার মতো একাধিক প্রতিশ্রুতি দিয়েই ক্ষমতায় এসেছিল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর দল। কিন্তু তার কোনওটাই প্রায় পূরণ হয়নি। সব প্রতিশ্রুতিই শেষমেশ হয়ে গিয়েছে এক-একটা ‘জুমলা’। কিন্তু সেই জুমলাই এবার বিপদে ফেলল। দুর্নীতি ও প্রতারণার অভিযোগে মামলা দায়ের হল মোদী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের বিরুদ্ধে।

সোমবার ঝাড়খণ্ড হাই কোর্টের এক আইনজীবী এইচ কে সিংয়ের দায়ের করা মামলাটি গৃহীত হয় রাঁচির জেলা আদালতে। ওই মামলায় নাম থাকা আরেক অভিযুক্ত হলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রামদাস আটাওয়ালে। আগামী ২ মার্চ মামলার শুনানি শুরু হবে বলে জানা গিয়েছে। মামলার আবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, ক্ষমতায় আসার আগে নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহ প্রত্যেক নাগরিকের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ১৫ লক্ষ করে টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। কিন্তু, ক্ষমতা আসার পর তার পূরণ করেননি।
মামলাকারী ওই আইনজীবীর অভিযোগ, ‘২০১৯ সালে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ সংসদে দাঁড়িয়ে দাবি করেন লোকসভা নির্বাচনের ইস্তেহারে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন প্রণয়নের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল। তাই সরকারে আসার পরেই এই প্রতিশ্রুতি পূরণ করা হল। কিন্তু, আমার প্রশ্ন হল ২০১৯ সালে দেওয়া সিএএ-র প্রতিশ্রুতি পূরণ হলেও প্রত্যেকের অ্যাকাউন্টে ১৫ লক্ষ টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি কেন পূরণ হল না? নাকি বিজেপির ইস্তেহারে থাকা সব প্রতিশ্রুতিকে তারা সম্মান দেয় না? জনপ্রতিনিধিত্ব আইন অনুযায়ী এভাবে মিথ্যে প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোটারদের প্রভাবিত করা যায় না। যদি এই ধরনের ঘটনা কেউ ঘটায় তাহলে তা মানুষকে ঠকানোর সামিল।’