কাশ্মীর নিয়ে বিজেপিকে থাপ্পড় সুপ্রিমকোর্টের, সমস্তরকম নিষেধাজ্ঞা কেনো আছে প্রশ্ন কেন্দ্রকে

নিউজ ডেস্ক : কাশ্মীর নিয়ে কোর্টে ধাক্কা খেলা বিজেপি। স্বরাস্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের দাম্ভিকতা চূর্ণ হয়ে গেল। ইন্টারনেট ব্যবহারের অধিকার নিজের ভাব প্রকাশের অধিকারের মধ্যেই পড়ে। তাই অনির্দিষ্ট কালের জন্য ইন্টারনেট বন্ধ রাখা ক্ষমতার অপব্যবহার ছাড়া কিছুই নয়। জম্মু-কাশ্মীরে নিষেধাজ্ঞা নিয়ে সরকারের প্রতি এভাবেই তোপ দাগল সুপ্রিম কোর্ট। এক সপ্তাহের মধ্যে জম্মু-কাশ্মীরের ওপর জারি করা যাবতীয় নিষেধাজ্ঞা পর্যালোচনা করার জন্য প্রশাসনকে নির্দেশ দিল সর্বোচ্চ আদালত।

গত ৫ অগস্ট সংবিধানের ৩৭০ ধারা খারিজ করে জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহার করে নেয় কেন্দ্র। একই সঙ্গে জম্মু-কাশ্মীর থেকে লাদাখকে আলাদা করে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত করা হয় এবং জম্মু-কাশ্মীরকেও একটি ভিন্ন কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত করা হয়। সেই থেকেই নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে একাধিক নিষেধাজ্ঞা জারি রয়েছে উপত্যকায়। বন্ধ রয়েছে ইন্টারনেট পরিষেবা। আটক করা হয়েছে জম্মু-কাশ্মীরের তিন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকেও।

আন্দোলন করার অধিকার, ইন্টারনেট এবং ন্যূনতম স্বাধীনতা থেকে মানুষকে এতদিন ধরে বঞ্চিত করে রাখা যায় না বলে শুক্রবার বিশেষ উল্লেখযোগ্য রায়ে জানালেন সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি এনভি রামান্না। সরকারের সঙ্গে মতানৈক্য ইন্টারনেট বন্ধ করে রাখার কারণ হতে পারে না বলে জানিয়েছে শীর্ষ আদালত। এই ধরনের নিষেধাজ্ঞা অল্প সময়ের জন্য নির্দিষ্ট কারণের প্রেক্ষিতে চলতে পারে, কিন্তু অনির্দিষ্টকালের জন্য নয় বলে স্পষ্ট ভাবে জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।