কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে ট্যুইট, জেএনইউ-এর প্রাক্তন ছাত্রনেত্রী শেহলা রশিদের বিরুদ্ধে মামলা

কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে ট্যুইট, জেএনইউ-এর প্রাক্তন ছাত্রনেত্রী শেহলা রশিদের বিরুদ্ধে মামলা

 

পি এম নিউজ, ডিজিটাল ডেস্ক : সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে কাশ্মীরে নিপীড়ন চালানোর অভিযোগ তুলে ট্যুইট করার পর মামলার কবলে পড়েছেন জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ের জেএনইউ প্রাক্তন ছাত্রনেত্রী শেহলা রশিদ। ‘ভুয়া খবর’ ছড়ানোর অভিযোগে শেহলার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা দায়ের হয়েছে।

গত ৫ আগস্ট সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের ঘোষণার মধ্য দিয়ে কাশ্মীরের স্বায়ত্তশাসনের অধিকার কেড়ে নেওয়া হয়। জম্মু-কাশ্মীরকে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত করতে পার্লামেন্টে পাস হয় একটি বিলও। আর গত ৯ আগস্ট রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষরের মধ্য দিয়ে আইনে পরিণত হয় তা। এই পদক্ষেপকে কেন্দ্র করে কাশ্মীরজুড়ে মোতায়েন করা হয়েছে বিপুলসংখ্যক অতিরিক্ত সেনা। ইন্টারনেট-মোবাইল পরিষেবা বন্ধ রাখা হয়েছে। গ্রেফতার করা হয়েছে সেখানকার বিপুলসংখ্যক রাজনৈতিক নেতাকে।

কাশ্মীরে বেসামরিক জনগণের ওপর ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনী নিপীড়ন চালাচ্ছে ও মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে- এ অভিযোগ তুলে রবিবার একগুচ্ছ ট্যুইট করেন রাজনৈতিক কর্মী শেহলা রশিদ।
ট্যুইটে তিনি বলেছেন, কাশ্মীরের একাধিক এলাকায় সেনাবাহিনী রাতে সাধারণ মানুষের বাড়িতে ঢুকে সবকিছু তছনছ করছে, খাবারদাবার নষ্ট করছে ও নির্বিচারে ছেলেদের তুলে নিয়ে যাচ্ছে। তিনি আরও অভিযোগ করেন, সোপিয়ানে চারজনকে তুলে নিয়ে গিয়ে সেনাবাহিনী শুধু অত্যাচারই করেনি, মাইক লাগিয়ে তাদের আর্তনাদ এলাকাবাসীকে শুনিয়ে ভীতি তৈরি করেছে। ভারতীয় বাহিনীর পক্ষ থেকে এই সব অভিযোগকে ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দেওয়া হয়।

শেহলার ট্যুইটের পর তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা দায়ের করেছেন সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী অলোক শ্রীবাস্তব। অবিলম্বে শেহলাকে গ্রেফতারের আর্জি জানিয়েছেন তিনি।

মামলা নিয়ে ট্যুইটারে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন কাশ্মির পিপল’স পার্টির নেতা শেহলা। ৮ আগস্টে করা ট্যুইটগুলো নতুন করে পোস্ট করে তিনি লিখেছেন, ‘আমার গ্রেফতার নিয়ে আলোচনা করতে গিয়ে দয়া করে কাশ্মীরে মানবাধির লঙ্ঘনের ঘটনা থেকে চোখ ঘোরাবেন না। যদি আমি গ্রেফতার হই, এই ট্যুইটগুলো পৃথিবীর সামনে শেয়ার করবেন!’

শেহলা জানান, সেনাবাহিনীর আচরণের বিরুদ্ধে যা যা তিনি লিখেছেন, সেইসব তথ্য সেখানকার ভুক্তভোগী মানুষের সঙ্গে কথা বলেই সংগ্রহ করেছেন। নিরপেক্ষ তদন্ত হলে ঘটনাগুলোর সত্যতা বেরিয়ে আসবে বলে দাবি করেন তিনি।