আজ মুরশির মাগফিরাত কামনায় তুরষ্কের জাতীয় মসজিদে দু’আ মাহফিল

পিএম নিউজ ডেস্কঃ গতকালই ইন্তেকাল করেছেন মিশরের প্রথম গণতান্ত্রিক নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট হাফিজ মোহাম্মদ মুরশি। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর। তাঁর ইন্তেকালে গোটা মুসলিম বিশ্ব শোকস্তব্ধ। তাঁর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান ও কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আলে ছানির মতো বিশ্ব নেতারা।

তুরস্কের ইসলাম বিষয়ক উপদেষ্টা আলি আরবাস আজ মঙ্গলবার তুরস্কের জাতীয় মসজিদে হাফিজ মোহাম্মদ মুরশির রুহের মাগফেরাত কামনায় বিশেষ দু’আ মাহফিল ও গায়েবানা নামাজ অনুষ্ঠিত হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন। ইতিমধ্যে মুসলমানদের প্রথম কিবলা বাইতুল মুকাদ্দাসে ইতিমধ্যে মুরশির স্মরণে গায়েবানা নামাজ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

২০১৩ সালে গণঅসন্তোষের সুযোগ নিয়ে তাকে ক্ষমতাচ্যুত করে মিসরীয় সেনাবাহিনী। পরে প্রেসিডেন্টের মসনদে বসেন মুরসির হাতে সেনাপ্রধান আবদেল ফাত্তাহ আল সিসি।

এরপরই ২০১৩ সালে মুরসির নেতৃত্বাধীন মুসলিম ব্রাদারহুডকে নিষিদ্ধ করা হয়। এর হাজার হাজার নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয় এবং বিভিন্ন অভিযোগে অনেককে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেয়া হয়। ২০১৪ সালে মুরসির বিরুদ্ধে অর্থের বিনিময়ে কাতারের কাছে রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ও নথি পাচার অভিযোগ আনে সেনাবাহিনী।

২০১৬ সালের জুন মাসে তথ্য পাচারের এ মামলায় তাকে দোষী সাব্যস্ত করেন নিম্ন আদালত। আদালত দেশের গুরুত্বপূর্ণ নথি পাচারের অভিযোগে মুরসিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দেন।
গতকাল কোর্টে একটি শুনানির পর অজ্ঞান হয়ে যায় এর পরই মারা যান। মুরসি ডায়াবেটিস, লিভার ও কিডনিজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন বলে সুত্রে জানাযায়।