দ্বিতীয়বার নির্ভয়ার চার ধর্ষকের ফাঁসি পিছোল, কোর্ট ও সরকারের উপর উঠছে প্রশ্ন!

নিউজ ডেস্ক : নির্ভয়ার ধর্ষকদের ফাঁসি হতে মাত্র কয়েকঘণ্টা বাকি। শনিবার সকালেই নির্ভয়ার ধর্ষক ও হত্যাকারীদের ফাঁসি হওয়ার জন্য চূড়ান্ত তৎপরতা তৈরি হয়ে গিয়েছিল। গোটা দেশ সেই অপেক্ষাতেই ছিল। কিন্তু শুক্রবার বিকেলেই এল মন ভেঙে দেওয়া খবর। দিল্লির পাতিয়ালা হাউস কোর্টের নির্দেশে আপাতত স্থগিত নির্ভয়ার চার অপরাধীর ফাঁসি। পরবর্তী নির্দেশ না আসা পর্যন্ত ফাঁসি হবে না বলেই জানিয়েছে আদালত। আইনি পথ খোলা থাকায় এদিন স্থগিত হয়ে গেল ফাঁসি।

ফাঁসির একদিন আগে, শুক্রবারই ফের আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিল নির্ভয়া কাণ্ডের অপরাধী। শুক্রবার সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করেছিল নির্ভয়ার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত চারজনের অন্যতম পবন গুপ্তা। নির্ভয়ার ওপর নির্মম অত্যাচার চালিয়ে গণধর্ষণের সময় সে নাবালক ছিল বলে দাবি করেছে পবন। এর আগে একাধিকবার নির্ভয়া কাণ্ডের সময় সে নাবালক ছিল বলে প্রমাণ করার চেষ্টা করেছে ২৫ বছরের পবন গুপ্তা। প্রতিবারই তার দাবি খারিজ করে দিয়েছে আদালত। গত ২০ জানুয়ারি পবনের স্পেশাল লিভ পিটিশন খারিজ করে দেয় সুপ্রিম কোর্ট। দিল্লি হাইকোর্টও তাকে অপরাধী সাব্যস্ত করে সাজা ঘোষণার সময় এই বিষয়টি খারিজ করে দেয়। এবার সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি আর বনুমথি মামলার এই দিকটি নিয়ে আর শুনানিতে সম্মত হননি। এভাবে একই বিষয় নিয়ে বারবার আবেদন করা যায় না বলে জানিয়ে দিয়েছেন তিনি।

এর আগে পবনের বয়স সংক্রান্ত ভুয়ো নথিপত্র জমা দেওয়ায় তার আইনজীবী এপি সিং-কে কড়া তিরস্কার করে দিল্লি হাইকোর্ট। ২০১২-র ২৩ ডিসেম্বর দিল্লির রাস্তায় চলন্ত বাসে প্যারামেডিক্যালের এক ছাত্রীর ভয়াবহ অত্যাচার করে গণধর্ষণ করা হয়। ছয় জনের মধ্যে একজন নাবালক হওয়ায় তিন বছর হোমে থেকে মুক্তি পেয়ে যায়। আরও একজন রাম সিং তিহাড় জেলেই আত্মহত্যা করে। বাকি চারজনের শনিবার সকাল ৬টা ফাঁসি হওয়ার কথা ছিল। গোটা দেশ তারই অপেক্ষায় ছিল। কিন্তু সেই ফাঁসি আপাতত স্থগিত হয়ে গেল।