প্রধানমন্ত্রীকে CAA আইন পরিবর্তনের আবেদন – জোট সঙ্গি বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নিতিষ কুমার

নিউজ ডেস্ক : CAA নিয়ে বিরোধিতা সুরু বাড়ছে বিজেপির জোট সঙ্গিদের মধ্যেই। বিধানসভাতে দাঁড়িয়ে রাজ্যে জাতীয় নাগরিক পঞ্জি চালু হবে না বলে পরিষ্কার জানিয়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার। সোমবার বিহার বিধানসভায় NRC ও NPR নিয়ে বিশেষ অধিবেশন করার দাবি জানায় বিরোধীরা। এর পরিপ্রেক্ষিতে নীতীশ কুমার পরিষ্কার জানিয়ে দিলেন বিহারে কোনও ভাবে জাতীয় নাগরিক পঞ্জি চালু করবে না তাঁর সরকার। পাশাপাশি নিজের দলের সহ-সভাপতি প্রশান্ত কিশোরের পথে হেঁটে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিষয়টিও পুনর্বিবেচনা করে দেখতে বললেন কেন্দ্রকে। এর ফলে বিজেপির জোট শরিক হয়েও তিনিই প্রথম আইনটি পুনর্বিবেচনা করে দেখতে বললেন।

ডিসেম্বর নাগরিকত্ব বিলে সমর্থন করায় প্রশান্ত কিশোর-সহ দলের একাধিক নেতা প্রকাশ‍্যে নীতীশ কুমারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন। দল থেকে পদত‍্যাগের ইচ্ছাও প্রকাশ করেন প্রশান্ত কিশোর। তখনই বিহারে NRC প্রয়োগ না করার কথা তাঁকে জানিয়েছিলেন নীতীশ কুমার। আজ নীতীশ কুমার বিধানসভাতেই সেই কথা বললেন। আর তাঁর এই মন্তব‍্যে অস্বস্তি বাড়ল গেরুয়া শিবিরের।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন চালু হওয়ার পর থেকেই দেশজুড়ে NRC ও CAA বিরুদ্ধে জনমত সংগ্রহের চেষ্টা চালাচ্ছে এনডিএ বিরোধীরা। বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ফলে এখনও পর্যন্ত বহুজনের মৃত্যু হয়েছে। বিহারেও বনধ ডেকেছিল বিরোধীরা। আর সোমবার NRC ও NPR নিয়ে বিধানসভায় আলোচনার দাবি তোলে। এর প্রেক্ষিতে আজ নীতীশ স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিলেন, বিহারে জাতীয় নাগরিক পঞ্জি চালু করার কোনও প্রশ্নই নেই। তাই এই বিষয়ে আলোচনা করে কী হবে। তাছাড়া এনআরসি শুধুমাত্র অসমের জন্য চালু করা হয়েছিল পুরো দেশের জন্য নয়।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে দেশব্যাপী যে লাগাতার বিক্ষোভ হচ্ছে তার দিকেও কেন্দ্রীয় সরকারকে দৃষ্টি দিতে অনুরোধ করেন তিনি। বলেন, দেশের বিভিন্ন জায়গায় এই বিষয় নিয়ে বিক্ষোভ হচ্ছে। অনেক মানুষ মারা গিয়েছেন। সরকারি ও বেসরকারি সম্পত্তির ক্ষতি হয়েছে। তাই এই বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করা উচিত।